ponirassociates.com

ট্রেডমার্ক রেজিস্ট্রেশন করার নিয়ম কি?

আমাদের দেশে ট্রেডমার্ক নিবন্ধন দিয়ে থাকে শিল্প মন্ত্রণালয়। দেশে প্রচলিত ট্রেডমার্ক আইন, ২০০৯ এবং আন্তর্জাতিক চুক্তির বিশেষ কিছু নিয়ম অনুসরণ করে শিল্প মন্ত্রণালয়ের অধীন পেটেন্ট, ডিজাইন ও ট্রেডমার্ক অধিদপ্তরের যে কেউ ট্রেডমার্ক নিবন্ধনের জন্য আবেদন করতে পারেন। প্রাথমিকভাবে আবেদন থেকে নিবন্ধন পর্যন্ত ধাপ চারটি। আর সরকারি ফি পরিশোধ করতে হয় তিনটি ধাপে। আবেদন প্রক্রিয়া ও ফি পরিশোধের চার্ট নিম্নরূপ;

ট্রেডমার্ক আবেদন করতে
কত টাকা খরচ?

 
  • ধাপ-১: ট্রেডমার্ক আবেদন দাখিল ১০০০০ টাকা

    প্রথমে আপনাকে ট্রেডমার্ক আবেদন করতে হবে। নির্দিষ্ট ফরমে এই আবেদন করা হয়। আমরা আপনার পক্ষে আবেদনটি করে থাকি এবং সকল প্রকার আপডেট সময়-সময় আপনাকে জানিয়ে থাকি।

    খরচ: সরকারী ফি: ৩৫০০ টাকা + ভ্যাট ৫২৫ +আমাদের ফি
    Timeline: আবেদন করতে ১ দিন সময় লাগে।

    কি কি কাগজ -পত্র লাগবে?:
    (১) আবেদনকারীর নাম, ঠিকানা, মোবাইল নাম্বার, এবং ই-মেইল
    (২) ট্রেডমার্কের কপি ও মার্কটি কোন কোন পণ্যে ব্যবহার হচ্ছে বা হবে উহার তালিকা।

    এই সকল তথ্য আপনি আমাদেরকে ই-মেইলে  প্রেরণ করতে পারেন।

  • ধাপ-২: আবেদন পরীক্ষা কন্ডিশনাল

    এই ধাপটি শুরু হয় আবেদন তথা ১ম দাপ থেকে ৬-১৮ মাস পরে। ট্রেডমার্কের এই ধাপটি অনেকটা নামজারি কেইসের মতো। অর্থাৎ জমির মালিকানার মতোই এই ধাপে ট্রেডমার্কের মালিকানা যাচাই করা হয়, আমাদের দেশে প্রচলিত ট্রেডমার্ক আইন ২০০৯ এর ধারা ৬,৮ ও ১০ অনুসারে আবেদনটি পরীক্ষা করা হয়। যদি আপনার আগে কেউ একই বা দেখতে একই ট্রেডমার্কের জন্য আবেদন করে থাকে বা অন্য কারোর নামে নিবন্ধন থাকে তাহলে আপনার মার্কটি নিবন্ধন হবে না। আবার যদি এমন হয় আপনার মার্কটি প্রচলিত সুপরিচিত টেড্রমার্কের নকল তাহলেও আপনার মার্ক নিবন্ধন হবে না। এই ক্ষেত্রে নামজরী কেইসের মতো ট্রেডমার্ক অফিস আপনাকে ২ মাসের মধ্যে জবাব দাখিলের সময় দিয়ে নিজের মার্কের মালিকানা সংক্রান্ত প্রমানাদি দাখিলের জন্য নোটিশ দিবে। ব্যর্থ হলে আপনার আবেদন পরিত্যাক্ত বলে গণ্য হবে। আর যদি কোন প্রকার নোটিশ ইস্যু না হয় তাহলে এই ধাপে ১ টাকাও খরচ নেই। নোটিশ ইস্যু না হলে আপনার মার্কটি পরবর্তী দাপে তথা গেজেটে প্রকাশের অনুমতি লাভ করবে।

  • ধাপ-৩:গেজেট বা জার্লান প্রকাশ ৯০০০ টাকা

    যদি ট্রেডমার্ক অফিস কোন নোটিশ ইস্যু না করে অথবা যদি ইস্যু করে এবং আপনি উক্ত নোটিশের বিষয়ে যথাযথ তথ্য ও প্রমাণ দাখিল করতে পেরেছেন এবং এসব তথ্য ও প্রমাণের বিষয়ে ট্রেডমার্ক অফিস সন্তুষ্ট হলে আপনার মার্কটি গেজটে প্রকাশের অনুমতি পত্র লাভ করবে এবং গেজেট বা জার্নাল ফি জমা দিলে ৫ থেকে ৬ মাসের গেজেটে আপনার মার্কটি প্রকাশিত হবে।

    আবেদনকারীর মার্কটি জার্নালে প্রকাশ করার অর্থ হচ্ছে যদি দেশ-বিদেশের কোন ব্যক্তি বর্ণিত মার্কের বিষয়ে ক্ষুব্ধ বা সাংঘর্ষিক মনে করেন তাহলে আপত্তিকারী যেন আবেদনকারীর মার্কটির নিবন্ধনের বিরোধিতার সুযোগ পায়। আবেদনকারীর মার্কটি ট্রেডমার্ক জার্নালে প্রকাশে ২ মাসের সংক্ষুব্ধ ব্যক্তি (বিশ্বের যে কোন প্রান্ত থেকে) নির্দিষ্ট প্রক্রিয়া অনুসরণ করে বিরোধিতার আবেদন (অপোজিশন কেস) দাখিল করতে পারবেন। মামলার ফলাফল নিবন্ধন আবেদনকারীর বিপক্ষে গেলে নিবন্ধনের আবেদনটি প্রত্যাখ্যান করা হবে এবং ফলাফল নিবন্ধন আবেদনকারীর পক্ষে হলে নিবন্ধন প্রদানের লক্ষ্যে পরবর্তী কার্যক্রম গ্রহণ করা হবে।

    খরচ: সরকারী ফি: ১০০০ টাকা + ভ্যাট ১৫০ আমাদের ফি

  • ধাপ-৪: রেজিষ্ট্রেশন ২৯০০০ টাকা

    জার্নাল প্রকাশের পর যদি কোন বিরোধিতার আবেদন না হয় অথবা বিরোধিতার মামলাটির ফলাফল নিবন্ধনের পক্ষে হয় তাহলে বর্ণিত মার্কটি ট্রেডমার্ক রেজিস্ট্রি-ভুক্ত হবে এবং আবেদনকারী এইমর্মে একটি রেজিস্ট্রেশন সার্টিফিকেট লাভ করবেন। রেজিস্ট্রেশনের মেয়াদ আবেদনের তারিখ হতে ৭ বছর এবং পরবর্তী প্রতি ১০ বছর অন্তর অনির্দিষ্টকাল পর্যন্ত (এমনকি উত্তরাধিকার সূত্রে) উহা নবায়ন করা যাইবে।

    খরচ: সরকারী ফি: ১৫০০০টাকা + ভ্যাট ২২৫০ আমাদের ফি